একরাম হত্যার চার বছর, পালিয়ে গেছে আসামিরা

আপডেটঃ ১:৪৭ অপরাহ্ণ | মে ২০, ২০১৮

সি এন এ  নিউজ,ফেনী:ফেনীর ফুলগাজী উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সভাপতি একরামুল হক একরাম হত্যার চার বছর পূর্ণ হলো আজ। ২০১৪ সালের ২০ মে ফেনী শহরের একাডেমীস্থ ফারুক হোটেলের সামনে সড়কে প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে গুলি করে ও তাকে বহনকারী গাড়িতে আগুন ধরিয়ে হত্যা করা হয়।

ঘটনার দিন রাতে একরামের বড় ভাই জসিম উদ্দিন বাদী হয়ে ফেনী মডেল থানায় বিএনপি নেতা মাহতাব উদ্দিন মিনারকে প্রধান আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ একই বছরের ২৮ আগস্ট ৫৬ জনকে আসামি করে চার্জশিট দাখিল করে।

এদিকে দীর্ঘ শুনানির পর চলতি বছরের ১৩ মার্চ আলোচিত এ হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আমিনুল হক। রায়ে ৩৯ আসামিকে ফাঁসির আদেশ ও ১৬ জনকে বেকসুর খালাস দেন আদালত। মামলার প্রধান আসামি বিএনপি নেতা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী মিনার খালাস পান। সাজাপ্রাপ্ত সবাই আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী বলে জানা যায়।

সাজাপ্রাপ্ত ৫৫ আসামির মধ্যে বিভিন্ন সময় পুলিশ ৪৫ জনকে গ্রেফতার করে। এদের মধ্যে এমরান হোসেন রাসেল, জাহিদুল হাসেম সৈকত, চৌধুরী মো. নাফিস উদ্দিন অনিক, জাহিদ চৌধুরী, মো. শামীম প্রকাশ টপ শামীম, আবিদুল ইসলাম আবিদ, জিয়াউর রহমান বাপ্পি, নুরুল আফসার, আরমান হোসেন কাউসার নামে ৯ আসামি জামিন নিয়ে পালিয়ে যায়।

বাকি ১০ আসামি ইসমাইল হোসেন ছুট্টু, কফিল উদ্দিন মাহমুদ আবির, টিটু, রাহাত মো. আরফান আজাদ, শরিফুল ইসলাম পিয়াস, বাবলু, শফিকুর রহমান ময়না, এশরাম হোসেন আকরাম, মহি উদ্দিন, মোসলেহ উদ্দিন আসিফকে গ্রেফতার করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। রুটি সোহেল নামে এক আসামি র্যাব’র সঙ্গে বন্ধুকযুদ্ধে মারা যান।

এ মামলায় ৫৯ জন সাক্ষির মধ্যে বাদী ও তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৫০ জন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত ৫৬ জন আসামির মধ্যে ১৬ জন বিচারিক হাকিম আদালতে ১৬৪ ধারায় হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত থাকার দায় স্বীকার করে জবানবন্