খুন করে ৪০ দিনের চিল্লায়!

আপডেটঃ ৫:১৯ অপরাহ্ণ | মে ১৩, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক :বর্তমান বাজারে একটি চাইনিজ ব্লুটুথ স্পিকারের দাম মাত্র ২০০ টাকা। অথচ সস্তা এ ব্লুটুথ স্পিকারের জন্য খুন হতে হলো আশরাফুল আলম জাহিদ নামে এক শিক্ষার্থীর। এ ঘটনার পর প্রধান আসামি মোহাম্মদ উল্লাহ রাসেল আত্মগোপন করতে বাগেরহাটে ৪০ দিনের চিল্লায় যায়। শনিবার গভীর রাতে বাগেরহাট থেকে তাকে গ্রেফতার করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি-ডিবি) উত্তর বিভাগ।

গত ২ মে রাজধানীর কুড়িল চৌরাস্তা এলাকায় ছুরিকাঘাতে এসএসসি পরীক্ষার্থী জাহিদকে হত্যা করে তার কলেজের সিনিয়র সহপাঠী মোহাম্মদ উল্লাহ রাসেল (ব্যবহৃত ছদ্মনাম- নির্মল)। গ্রেফতারের পর শনিবার রাতভর রাসেলকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ডিবি।

রোববার দুপুরে এক বার্তায় ডিবি জানায়, রাসেল হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি। জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কথা স্বীকার করে এবং হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরিটি কাফরুলের পুলপাড় ব্রিজের নিচের নর্দমা থেকে উদ্ধার করা হয়।

ডিবির জিজ্ঞাসাবাদে রাসেল জানায়, জাহিদের সঙ্গে রাসেলের ব্লুটুথ স্পিকার নিয়ে বাদানুবাদ হয়। এক পর্যায়ে জাহিদকে ছুরিকাঘাত করে। জাহিদকে বাঁচাতে এগিয়ে আসা হাসান, রিয়াজ ও বিপ্লবকেও ছুরি দিয়ে আঘাত করার কথা স্বীকার করে রাসেল। হত্যাকাণ্ডের পরপরই আত্মগোপনের উদ্দেশ্যে নিজের নাম পরিবর্তন করে ছদ্মনামে ৪০ দিনের চিল্লায় তাবলিগ জামায়াতে অংশ নেয়।

এ ঘটনায় জাহিদের বাবা ঘটনার দিন ভাটারা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। এরপর মামলার ছায়া তদন্ত শুরু করে ডিবি।

জাহিদকে জিজ্ঞাসাবাদের পর জাহিদকে জাতীয় কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর আবেদন করবে ডিবি।