স্বপ্ন পূরণের অপেক্ষায় ইনজামামের ভাতিজা

আপডেটঃ ৫:৪৯ অপরাহ্ণ | মে ১০, ২০১৮

ক্রীড়া ডেস্ক : দেশের হয়ে টেস্ট খেলার স্বপ্নটা তার ছোটবেলা থেকেই। তবে প্রথম টেস্ট ম্যাচটা যে আয়ারল্যান্ডে হবে, তা কখনো ভাবেননি ইমাম-উল-হক। সব ঠিক থাকলে শুক্রবার টেস্ট অভিষেক হবে পাকিস্তানের এই ব্যাটসম্যানের।

ইমাম পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক ও বর্তমানে প্রধান নির্বাচক ইনজামাম-উল-হকের ভাতিজা, যিনি ওয়ানডে অভিষেকেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে করেছিলেন সেঞ্চুরি। খেলেছেন ৪টি ওয়ানডে। এবার টেস্ট দলে সেরা তিনে ব্যাটিংয়ের অপেক্ষায় ২২ বছর বয়সি এই ব্যাটসম্যান।

ইংল্যান্ডে পাকিস্তানের দুটি চার দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে দুটি হাফ সেঞ্চুরি করেছেন ইমাম। কেন্টের বিপক্ষে ৬১, নর্দাম্পটনশায়ারের বিপক্ষে ৫৯। গত বছর মিসবাহ-উল-হক ও ইউনিস খানের অবসরের পর থেকে টেস্টে ব্যাটিংয়ে ধুঁকছে পাকিস্তান। সেই জায়গা এবার কিছুটা শক্তিশালী করার আশায় ইমাম।

টেস্ট অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা ইমাম বলেছেন, ‘এটা খুবই গর্বের অনুভূতি। সবাই জানে মিসবাহ-উল-হক এবং ইউনিস খান অবসর গ্রহণ করেছেন এবং আমাদের তরুণদের অনেক কাজ করতে হবে। আমরা এই সিরিজে তা করতে মুখিয়ে আছি। দুটি চার দিনের ম্যাচে আমি রান করেছি, যা আমাকে আত্মবিশ্বাস দিয়েছে। আমি খুব আশাবাদী যে, এই সিরিজে আমি ভালো করব।’

অভিষেক টেস্ট হওয়ায় স্নায়ুচাপ থাকবে। তবে সবকিছুর জন্যই প্রস্তুত ইমাম, ‘অবশ্যই এটা আমার প্রথম টেস্ট ম্যাচ হবে। আমার প্রথম চাপের ম্যাচ। এটা খুবই স্নায়ুচাপের হবে। আমি মিথ্যা বলব না- যখন বড় হতে শুরু করেছি তখন থেকে দেশের হয়ে টেস্ট খেলার স্বপ্ন ছিল আমার। আমি কখনো ভাবিনি, আমার প্রথম টেস্ট ম্যাচটা আয়ারল্যান্ডে খেলতে হবে। সুতরাং এটা ভিন্ন অনুভূতির। তবে একজন ক্রীড়াবিদ হিসেবে সব কিছুর জন্যই আমি প্রস্তুত।’

ডাবলিনের মালাহাইডে শুক্রবার শুধু ইমামেরই টেস্ট অভিষেক হবে না, এটা আয়ারল্যান্ডেরও অভিষেক টেস্ট। গত বছর আফগানিস্তানের সঙ্গে আয়ারল্যান্ডও টেস্ট স্ট্যাটাস পেয়েছে। আফগানিস্তান ১৪ জুন তাদের প্রথম টেস্ট খেলবে ভারতের সঙ্গে। তার আগেই টেস্ট অভিষেক হয়ে যাচ্ছে আয়ারল্যান্ডের। তাদের প্রথম পাঁচ দিনের ম্যাচে তারা আতিথ্য দেবে পাকিস্তানকে।

২০০৭ বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে স্মরণীয় এক জয় পেয়েছিল আয়ারল্যান্ড। সেই হারে পাকিস্তান বিদায় নিয়েছিল গ্রুপ পর্ব থেকেই। জ্যামাইকার স্যাবিনা পার্কের দুঃসহ সেই স্মৃতি ইমামের কণ্ঠে, ‘আমার ম্যাচটা মনে আছে। এটা আয়ারল্যান্ড ক্রিকেটের জন্য ছিল দারুণ একটি দিন, আর পাকিস্তানের জন্য খুবই দুঃখের দিন। কিন্তু খেলাধুলায় সবকিছুই ঘটতে পারে। একই দিনে ভারত বাংলাদেশের কাছে হেরেছিল। সুতরাং আমরা খুশি ছিলাম। তবে এটা জাতি হিসেবে পাকিস্তানের জন্য ছিল দুঃখের দিন। আশা করি, টেস্ট ম্যাচ জিতে আমরা নিজেদের ফিরে পাব।’

আয়ারল্যান্ডের জন্য শুভ কামনাও জানিয়েছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান, ‘তারা তাদের প্রথম টেস্ট খেলবে। আমরা তাদের শুভ কামনা জানাতে চাই। এটা আইরিশ ক্রিকেটের জন্য খুব ভালো একটি দিন। আশা করি, তারা ভালো খেলবে এবং ভবিষ্যতে খুব ভালো একটি দলে পরিণত হবে।’