প্রক্সি দিতে এসে ৭০ জন শ্রীঘরে

আপডেটঃ ১০:২৯ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ০৫, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক : কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগের পরীক্ষায় অন্যের হয়ে পরীক্ষা (প্রক্সি) দিতে এসে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭৬ জন ছাত্র গ্রেফতার হয়েছেন। এর মধ্যে ৭০ জনকে ১৫ দিনের দণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ৬ জনকে শাহবাগ থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। শুক্রবার কৃষি মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

 

কৃষি অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শুক্রবার কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনে ১১ ক্যাটাগরিতে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগের পরীক্ষা ছিল। ১৫৭৮টি শূন্য পদের বিপরীতে ওই দিন ৫০ হাজার ৯৬৫ জন পরীক্ষায় অংশ নেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউটের পরিচালনায় ঢাকা মহানগরীর ২৮টি কেন্দ্র এ পরীক্ষা হয়। কৃষি মন্ত্রণালয় এবং অধিদপ্তরের যৌথ নেতৃত্বে এ সময় বিভিন্ন পরীক্ষার হলে অভিযান চালানো হয়।

 

সকালে সিদ্ধেশ্বরী কলেজ কেন্দ্রে উপস্থিত কয়েকজনের স্বাক্ষর, ছবি এবং আচরণ ইত্যাদি নানা বিষয় দেখে সন্দেহ হয়। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে আটক করা হয়। এর পর ওই টিম সন্ধ্যা পর্যন্ত বিভিন্ন কেন্দ্রে অভিযান চালিয়ে ৭৬ জনকে আটক করে। পরে তাদের কৃষি অধিদপ্তরের ওই টিমের জিম্মায় নিয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ সময় অন্যদের ব্যাপারে তথ্য বেরিয়ে আসে।

 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালন মো. হামিদুর রহমান স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, এ ধরণের পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে পারে বলে আগে থেকে তাদের কাছে তথ্য ছিল। কিন্তু কয়েকজন পরীক্ষার্থীকে আটকের পর ওই সন্দেহ আরো ঘনিভূত হয়। মেধা এবং যোগ্যতার ভিত্তিতে এখানে লোকজন নিয়োগ দেওয়া হবে। সে ক্ষেত্রে প্রক্সি দেওয়ার সুযোগ নেই। এ জন্য মন্ত্রণালয়য়ের গোয়েন্দা তৎপরতা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে বলে হুঁশিয়ার করা হয়।

 

শুক্রবার রাতে ঘটনার সতত্যা স্বীকার করে শাহবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিক  বলেন, ‘৬ জনকে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। আপাতত নাম-পরিচয় না জানাই ভালো। কেননা, তাদের বিরুদ্ধে মামলা করার কথা বলা হলেও এখনো রেকর্ডভুক্ত হয়নি। বাকি ৭০ জনকে ১৫ দিন করে দ- দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এরা সবাই বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। এর মধ্যে কয়েকজন ঢাকা বিশ্বববিদ্যালয়ের ছাত্র বলে ধারনা করা হচ্ছে।