নরসিংদীতে স্কুল শিক্ষার্থী আবির হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

আপডেটঃ ১১:১৭ অপরাহ্ণ | মার্চ ১৩, ২০১৮

এম.এ.সালাম রানা, নরসিংদী :নরসিংদীতে সদর উপজেলার পাচঁদোনা স্যার কে. জি. গুপ্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুল শিক্ষার্থী আবির হত্যার প্রতিবাদসহ খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৩ মার্চ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় নরসিংদী প্রেসক্লাবের সম্মুখস্থ ডি.সি. রোডে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে একই বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা, ছাত্র-ছাত্রীসহ নিহত আবিরের সহপাঠীবৃন্দ অংশ নেয়। ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে নিহত আবিরের মাতা হালিমা বেগম পুত্র হত্যার বিচারের দাবী’তে বক্তব্য শেষে নরসিংদী’র নব-নিযুক্ত নারী জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন’র নিকট একটি স্বারকলিপি প্রদান করে।
নরসিংদী সদর উপজেলার কাঠালিয়া ইউনিয়নের সৈকাদী গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী মো: আইযুব আলী ও প্রতিবেশী রমিজ উদ্দিনের পরিবারের মাঝে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের হিসেবে ৫ মার্চ সোমবার বিকেলে রমিজ উদ্দিনের পুত্র মনিরের নেতৃত্বে লিটন, মো: বাছেদ, তোফাজ্জল, রুবেলসহ ১০/১২ জন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রে-স্বস্ত্রে সজ্জিত হয়ে প্রবাসী আইয়ূব আলীর বাড়ীতে হামলা চালায়। হামলাকালে আইযুব আলীর স্কুল পড়–য়া কনিষ্ঠ পুত্র আবিরের মাথায় স্বসস্ত্র সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রাঘাতে গুরুতর আহত হয়। এ সময় ছোট ভাই আবিরকে বাচাঁতে নরসিংদী সরকারী কলেজ পড়–য়া আইযুব আলীর জ্যৈষ্ঠ পুত্র হিমেল এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা এলো-পাথারি কুপিয়ে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে। গুরুতর আহত ২ ভাইয়ের চিৎকারে এলাকাবাসী দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছলে সন্ত্রাসীীরা দ্রুত পালিয়ে যায়। আশংখাজনকাবস্থায় আবির ও হিমেলকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৭ মার্চ বুধবার ভোরে ঘটনার ২ দিন পর নিহতের বড় ভাইসহ স্কুল শিক্ষাথী আবির ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাকালীন ছোট ভাইয়ের মর্মান্তিক মৃত্যু ঠেকাতে পারেনি হিমেল। এ ঘটনায় নরসিংদী সদর থানায় নিহতের মাতা হালিমা বেগম বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।
অপরদিকে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে পাচঁদোনা স্যার কে. জি. গুপ্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ স্কুল শিক্ষাথীরা নিহত সহপাঠী আবিরের হত্যাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে স্থানীয় প্রশাসনের নিকট দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানায়।