জামালগঞ্জে দোলতা নদীতে পানি শুকিয়ে মাছ ধরার অভিযোগ

আপডেটঃ ৪:৫২ অপরাহ্ণ | মার্চ ১৩, ২০১৮

মো. শাহীন আলম, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলাধীন ভীমখালী ও ফেনারবাঁক ইউনিয়নের অন্তর্গত দোলতা নদী জলমহালে পানি শুকিয়ে মাছ ধরার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর এ অভিযোগটি গ্রামবাসীর পক্ষে দাখীল করেন জামালগঞ্জ প্রতিবন্ধী সমাজ কল্যাণ সমিতির সভাপতি শাহ আবুল কাশেম। অভিযোগ থেকে জানাযায়, দোলতা নদী জলমহালে এলাকাবাসী গোসল করা, থালা বাসন, গরু বাছুরের পানি খাওয়ানো ও ধৌত করা সহ দৈনন্দিন কাজে ওই পানি ব্যবহার হয়ে থাকে। উক্ত জলমহালটি রাজাপুর মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেড এর নামে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার বন্দোবস্ত প্রদান করেন। জলমহালটির সভাপতি আব্দুল আজিজ উক্ত নদীটির বিভিন্ন নামে সাবলীজ দিয়ে দেন। সাব লীজ প্রাপ্ত ভীমখালী ইউনিয়নের ফেকুল মাহমুদ পুর গ্রামের মাহবুব আলম, নাছির মিয়া উভয় পিতা ফখর উদ্দিন। কান্দাগাও গ্রামের শামছুল আলমের ছেলে মাছুম, মাহমুদপুর গ্রামের ছাদ মিয়ার ছেলে খসরু মিয়া। উক্ত ব্যক্তিগণ সরকারী নীতিমালা অনুযায়ী জলমহালের পানি না শুকিয়ে মাছ ধরার কথা থাকলেও তারা ডিজেল মেশিন বসাইয়া নদীর কিছু অংশ শুকাইয়া মাছ ধরিতেছে এবং বাকী অংশ শুকানোর চেষ্টা করিতেছে। বর্তমানে এ নদীতে কয়েকটি মেশিন স্থাপন করা আছে। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। যে কোন সময় দাঙ্গা হাঙ্গামা সহ খুন খারাবি ঘটার সম্ভাবনা বিদ্যমান। এমতাবস্থায় উপরোক্ত বিষয়টি সরজমিনে তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আকুল আবেদন জানান। এ ব্যাপারে জামালগঞ্জ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. সেফাউল আলম বলেন, অভিযোগটি পেয়েছি। সরকারী-বেসরকারী কোন ধরনের জলশয় শুকিয়ে মাছ ধরা বেআইনী এসমস্থ কাজে কেহ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।