rtvonline-নেপাল-ইউএস বাংলা-Nepal-US-Bangla-BS-211

নেপালে বিমান বিধ্বস্ত : ৯ বাংলাদেশি জীবিত

আপডেটঃ ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ | মার্চ ১৩, ২০১৮

ডেস্ক রিপোর্ট : নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় ৩৬ বাংলাদেশির মধ্যে মাত্র ৯ জন জীবিত আছেন বলে জানালেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম।

সোমবার (১২ মার্চ) রাত ১০টা ২৭ মিনিটে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেওয়া এক পোস্টে একথা জানান তিনি।

ওই বিমানের পাইলট, ক্রু ও যাত্রীদের নামের তালিকার ছবি পোস্ট করে তিনি লিখেছেন, পাইলট নরভিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। একজন ক্রু সম্ভবত জীবিত আছেন, তবে তাকে এখনও পাওয়া যায়নি।

এই তালিকা থেকে জানা যায়, বিমানটিতে মোট ৩৬ জন বাংলাদেশি ছিলেন। এর মধ্যে ৪ জন্য ইউএস বাংলার পাইলট ও ক্রু। বাকি ৩২ জন ছিলেন যাত্রী। ৩৬ জন বাংলাদেশির মধ্যে মাত্র ৯ জন জীবিত রয়েছেন, বাকিরা নিহত হয়েছেন।

আহত শাহরিন আহমেদ, আলমুন নাহার এ্যানি, শাহীন ব্যাপারী, মেহেদি হাসান, এমরানা কবীর, কবীর হোসেন, শেখ রাশেদ রোবায়েত ও সৈয়দা কামরুন্নার স্বর্ণা কাঠমান্ডু মেডিকেল কলেজে (কেএমসি) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। আর ওম হাসপাতালে ভর্তি আছেন রেজওয়ানুল হক।

নিহতরা হলেন- রকিবুল হাসান, ফারুক আহমেদ প্রিয়ক, তার মেয়ে প্রিয়ন্ময়ী তামারা (শিশু), রফিক জামান, তার স্ত্রী সানজিদা হক বিপাশা, তাদের ছেলে অনিরুদ্ধ জামান (শিশু), নাজিয়া আফরিন চৌধুরী, বেগম উম্মে সালমা, ফয়সাল আহমেদ, ইয়াকুব আলী, আলিফুজ্জামান, বিলকিস আরা, নাহার বিলকিস বানু, আখতারা বেগম, হাসান ইমাম, মো. নজরুল ইসলাম, আঁখি মনি, মেহনাজ বিন নাসির, মতিউর রহমান, এস এম মাহমুদুর রহমান, তাহিরা তানভিন শশী রেজা, পিয়াস রায় ও মো. নুরুজ্জামান।

এদিন দুপুরে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হওয়া ফ্লাইটটিতে ৪ ক্রু এবং ৬৭ যাত্রী মিলে ৭১ জন যাত্রী ছিলেন।