এক-এগারো থেকে বিএনপি শিক্ষা নেয়নি : কাদের

আপডেটঃ ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ | জানুয়ারি ১২, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক :এক-এগারো থেকে আওয়ামী লীগ শিক্ষা নিয়েছে। কিন্তু বিএনপি নেয়নি, তাই  আবারো এক-এগারোর ভয় আশঙ্কা আছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তবে আশঙ্কা থাকলেও বাংলাদেশে আর কোনোদিন এক-এগারোর মতো ঘটনার পুনরাবৃত্তি করা যাবে না বলে মনে করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সম্প্রতি বিভিন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্যবসায়ীদের দিকে ঝুঁকছে কি না-এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল বলেন, ‘দলের প্রার্থী, নির্বাচন আর দলীয় নেতা, এখানে পার্থক্য আছে। নির্বাচনে আমরা অ্যালায়েন্স করি। আমরা এরশাদ সাহেবের সঙ্গেও অ্যালায়েন্স করেছি। আমাদের ১৪দল আছে, কিন্তু আমাদের মত ও পথ এক নয়। তারপরও আমরা অনেকের সঙ্গে অ্যালায়েন্স করি। এটা হলো রাজনৈতিক স্ট্র্যাটেজি।

পৃথিবীর সব দেশে নির্বাচনে স্ট্র্যাটেজিক অ্যালায়েন্স হয় দাবি করেন ওবায়দুল কাদের। এ ব্যাপারে দলীয় স্ট্র্যাটেজি তুলে ধরে তিনি বলেন, আমরা আমাদের সমমনা ব্যক্তিদের দেব (মনোনয়ন)।

তিনি আরো বলেন, ‘একজন রাজনীতিবিদ কী ব্যবসা করতে পারেন না? তাঁরা চাঁদাবাজি করে খাবেন?’

ডিএনসিসির উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ কী কাউকে চূড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছে কি না-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেননি আতিককে আমি গ্রিন সিগন্যাল দিয়েছি। উনি মুখে এটা বলেননি। তবে শেখ হাসিনা আতিককে বলেছেন, তুমি নির্বাচন করতে চাইলে নির্বাচন করার জন্য কাজ শুরু করো, প্রস্তুতি নাও। নমিনেশন দেবে আমার নমিনেশন বোর্ড। আমরা প্রার্থীতা ঠিক করে দেইনি।’

ওবায়দুল কাদের দলের সাংগঠনিক তৎপরতা নিয়ে বলেন, দলের ভেতরে ছোটখাটো সমস্যা থাকতেই পারে। সে কারণে কোথাও কোথাও সম্মেলন হয়নি। তবে দলকে আধুনিক এবং মাঠে সুসংগঠিত করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই আগামী নির্বাচনে অংশ নেব। ইতিমধ্যে আমাদের টিম নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রত্যেকের সাংগঠনিক এলাকায় তারা টিম ওয়ার্ক করে সমস্যা চিহ্নিত করে সমাধান নেবে।’

বিএনপি বড় বড় কথা বলে তারা কি আওয়ামী লীগের মতো আভ্যন্তরীণ গণতন্ত্রের প্র্যাকটিস করে বলেও দলটির সমালোচনা করে কাদের বলেন, জনগণের কাছে ভুল স্বীকার করতে আমাদের কোনো দ্বিধা নেই। কারণ ভুল কিছু হতে পারে। কিন্তু আমাদের অর্জন অনেক কিছু। চাঁদের মধ্যেও তো কলঙ্ক থাকে। কলঙ্ক ছাড়া তো চাঁদ হয় না। আমাদের সামান্য অপকর্ম দিয়ে বিশাল অর্জন এবং উন্নয়নের দৃষ্টান্তগুলোকে কখনো ঢাকা যাবে না।

সংবাদ সম্মেলনের আগে ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে সম্পাদকমণ্ডলীর সভা অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে দলীয় নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, আব্দুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এনামুল হক শামীম, মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাঁপা, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শাম্মী আহম্মেদ, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা, উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।