বাকি পাঁচ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ পরীক্ষা চলবে

আপডেটঃ ৯:১৯ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৭, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক :রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) সমন্বিতভাবে এ তিন ব্যাংকসহ আট ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। তবে বাকি পাঁচ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ পরীক্ষা যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির (বিএসসি) সদস্য সচিব মো. মোশারফ হোসেন খান এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংক বাদ দিয়ে বাকি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষা যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

মোশারফ হোসেন খান বলেন, দুই লাখ ১৩ হাজার ৫০০ পরীক্ষার্থী প্রবেশপত্র ডাউনলোড করেছেন। এ পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে সোনালী, রূপালী এবং জনতা ব্যাংক বাদে বাকি প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়োগ প্রক্রিয়া যথানিয়মে চলবে।

বাকি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশন ও ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)।

এর আগে, রোববার রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের বিভিন্ন পদে নিয়োগ পরীক্ষার কার্যক্রম স্থগিত করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে নিয়োগ পরীক্ষা কেন বাতিল করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়েছে। এ বিষয়ে এক রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী রাশেদুল হক খোকন। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী তানজিম আল ইসলাম ও মির্জা সুলতান আল রাজা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাতার হোসেন সাজু।

শুনানি শেষে আইনজীবী অ্যাডভোকেট রাশিদুল হক খোকন  বলেন, গত বছরের তিনটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আওতায় সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের যে নিয়োগ পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল- সে বিষয়ে আদালত এ নির্দেশনা দিয়েছেন।

২০১৬ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি রূপালী ব্যাংক ৭০১টি শূন্য পদে অফিসার ও ক্যাশ অফিসার পদে নিয়োগে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়। ওই বছরের ২৬ জুলাই ৪২৩টি শূন্য পদে সিনিয়র অফিসার ও ৩ আগস্ট ৭৩৬টি শূন্য পদে অ্যাসিস্ট্যান্ট এক্সিকিউটিভ অফিসার পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়।

কিন্তু এসব নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির নিয়োগ পরীক্ষা না নিয়ে গত বছরের ২৩ আগস্ট বাংলাদেশ ব্যাংক ৮টি ব্যাংকের এক হাজার ৬৬৩টি সিনিয়র অফিসার (সাধারণ) পদের জন্য সমন্বিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়। এরপর ২৯ আগস্ট আবার তিন হাজার ৪৬৩টি অফিসার (সাধারণ) শূন্য পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়।

সর্বশেষ গত বছরের ৭ সেপ্টেম্বর দুই হাজার ২৪৬টি অফিসার (ক্যাশ) শূন্য পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এসব নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির ভিত্তিতে আগামী ১২ জানুয়ারি নিয়োগ পরীক্ষা হওয়ার কথা।

বাংলাদেশ ব্যাংক, অর্থসচিব, ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির চেয়ারম্যান ও সদস্য সচিবকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। নিয়োগ পরীক্ষার প্রার্থী বগুড়ার আসাদুজ্জামান, কুমিল্লার আবু বকরসহ ২৮ জন ২০১৭ সালের নিয়োগ পরীক্ষার সার্কুলার বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন।