জাতিসংঘে রোহিঙ্গা বিষয়ক প্রস্তাবে চীনের বিরোধিতা

আপডেটঃ ৯:২০ পূর্বাহ্ণ | ডিসেম্বর ০৬, ২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের বিশেষ অধিবেশনে মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের অধিকার সুরক্ষা বিষয়ক একটি প্রস্তাব পাস হয়েছে। তবে, চীনসহ তিনটি দেশের বিরোধিতার কারণে প্রস্তাবটি সর্বসম্মতভাবে পাস হয়নি।

মঙ্গলবার জেনেভায় কাউন্সিলের ২৭তম বিশেষ অধিবেশনে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের আনা প্রস্তাবটি ৩৩-৩ ভোটে পাস হয়। কাউন্সিলের ৪৭ সদস্য রাষ্ট্রের মধ্যে চীন, ফিলিপাইন ও পূর্ব আফ্রিকার দেশ বুরুন্ডি বিপক্ষে ভোট দিয়েছে। আর ভোট দেওয়া থেকে বিরত ছিল ভারত ও জাপানসহ ৯টি দেশ ।

বাংলাদেশের অনুরোধে জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিল মঙ্গলবার ‘মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্ঠী ও অন্যান্য সংখ্যালঘুদের মানবাধিকার পরিস্থিতি’ শীর্ষক বিশেষ অধিবেশনটি ডেকেছিল। অধিবেশনে বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের বিষয়ে একটি প্রস্তাবের খসড়া দেয়।

অধিবেশনের উদ্বোধনী পর্বে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার জেইদ রাদ আল হুসেইন বলেন, রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর চরম নৃশংসতার জন্য গণহত্যার দায়ে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর বিচার হতে পারে। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদকে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তদন্ত চালাতে একটি নিরপেক্ষ ও স্বাধীন তদন্ত কমিশন গঠনের সুপারিশের অনুরোধ বিবেচনা করার অনুরোধ জানান তিনি।

জেনেভায় মিয়ানমারের স্থায়ী প্রতিনিধি তিন লিন প্রস্তাবের বিরোধিতা করে বলেন, মানবাধিকারের ক্ষেত্রে সবার জন্য সুরক্ষা অপরিহার্য, সেখানে একটি নির্দিষ্ট গোষ্ঠীর ওপর গুরুত্ব দিয়ে প্রস্তাবটি বাজে দৃষ্টান্ত তৈরি করতে যাচ্ছে।

এসময় তিনি জানান, রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে মিয়ানমার সরকার। রাখাইনের পরিস্থিতি উন্নয়নে তার দেশে জাতিসংঘকে  সহযোগিতা করতে প্রস্তুতও বলে জানান মিয়ানমারের দূত।