কক্সবাজারে জামায়াত নেতার ফ্ল্যাটে রোহিঙ্গারা

আপডেটঃ ৯:৩৩ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ১৪, ২০১৭

কক্সবাজার প্রতিনিধি :কক্সবাজার শহরের অত্যাধুনিক অভিজাত ফ্ল্যাটে রোহিঙ্গাদের এনে জড়ো করা হচ্ছে। জামায়াত নেতারা বাংলাদেশি পরিচয়ে ফ্ল্যাটগুলো ভাড়া নিয়ে রোহিঙ্গাদের জড়ো করছে।

রোহিঙ্গাদের এসব ভাড়া বাসায় এনে রাখছে কক্সবাজার সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জামায়াত নেতা ভিপি বাহাদুর।

রোহিঙ্গাদের কক্সবাজারে এনে নাশকতার পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে।

সরকারকে বিব্রত করতে রামুর বৌদ্ধমন্দিরে হামলার মতো আরো একটি বড় সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার ছক আঁকছে জামায়াত। তারা রোহিঙ্গাদের কক্সবাজার শহরের বিভিন্ন অভিজাত বাসায় এনে জড়ো করছে। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে কক্সবাজারের অভিজাত ফ্ল্যাটে জামায়াতের আশ্রয়ে বসবাসকারী রোহিঙ্গা পরিবারকে উচ্ছেদে অভিযান শুরু করেছে প্রশাসন। মঙ্গলবার শহরের বার্মিজ মার্কেট এলাকায় জামায়াত নেতা ও রামু বৌদ্ধমন্দিরে হামলার পরিকল্পনাকারী ভিপি বাহাদুরের কয়েকটি অভিজাত ফ্ল্যাট থেকে ১১ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। এই সময় ঐ বাসার কেয়ারটেকারকে আটক করা হয়রছে। অভিযানের খবর পেয়ে কৌশলে পালিয়ে যায় ওই জামায়াত নেতা। আটক হওয়া রোহিঙ্গাদের কক্সবাজার সদর থানায় রাখা হয়েছে।

কক্সবাজার শহরের রুমালিয়ারছড়া, তারাবনিয়ারছড়া, টেকপাড়া, পাহাড়তলিসহ বিভিন্ন আবাসিক ভবনে বাসা ভাড়া নিয়ে রোহিঙ্গাদের জড়ো করছে জামায়াত-শিবিরের নেতারা।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এহসান মুরাদ জানান, কক্সবাজারের জামায়াত নেতা ও রামু বৌদ্ধমন্দির হামলার পরিকল্পনাকারী ভিপি বাহাদুর কক্সবাজার শহরের অভিজাত ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে রোহিঙ্গাদের জড়ো করছে- এই  তথ্যের ভিত্তিতে শহরের বার্মিজ মার্কেট এলাকার একটি ভবনের কয়েকটি ফ্ল্যাট থেকে ১১ রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়েছে। রোহিঙ্গারা এসব অভিজাত ভবনে এসি, এলসিডি টিভি ও ফ্রিজসহ অত্যাধুনিক জিনিসপত্র ব্যবহার করে আলিশানভাবে বসবাস করে আসছিল। এ সময় বাড়ির কেয়ারটেকারকে আটক করা হয়।

কেয়ারেটরকার স্বীকার করেছে, জামায়াত নেতা ভিপি বাহাদুর ওই ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে দুই মাস আগে রোহিঙ্গাদের জড়ো করেছে। কোনো পরিকল্পিত উদ্দেশ্যে জামায়াত নেতা ভিপি বাহাদুর রোহিঙ্গাদের কক্সবাজার শহরে জড়ো করেছে। কক্সবাজার শহরকে রোহিঙ্গামুক্ত রাখতে রোহিঙ্গাদের আশ্রয়দাতাদের আইনের হাতে তুলে দিতে স্থানীয় বাসিন্দাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে প্রশাসন।