নরসিংদীতে ঘাতক স্বামী কর্তৃক প্রতিবন্ধি ভিক্ষুক স্ত্রীসহ ৫ বছরের শিশু কন্যাকে মর্মান্তিকভাবে খুন

আপডেটঃ ৯:২৮ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ১৪, ২০১৭

এমএ সালাম রানা, নরসিংদী:নরসিংদীতে মাদকাসক্ত ঘাতক স্বামী তার প্রতিবন্ধি স্ত্রীসহ ৫ বছরের শিশু কন্যাকে মর্মান্তিকভাবে খুন করার এক চাঞ্চল্যকর সংবাদ পাওয়া গেছে। জেলা শহরের অনতিদুরে ঘোড়াদিয়া বনিক পাড়ায় এই বিশ্ময়কর ঘটনাটি সংঘটিত হয়েছে। পারিবারিক সৃষ্ট কলহের জের হিসেবে ঘাতক স্বামী করিব হোসেন বিগত সময়ের ন্যায় ঘটনার সময় বাড়ী এসে স্ত্রী রাজিয়া বেগমও কন্যা সাদিয়া আক্তারের উপর শারিরীক নির্যাতন চালাতে থাকে।স্ত্রী- কন্যার উপর নির্যাতনের একপর্যায়ে ঘাতক করিব হোসেন তাদেরকে নির্মমভাবে শ্ব্যাসরোধ করে হত্যা করে।প্রতিবেশি লোকজন সংঘটিত ঘটনা আচ করার পূর্বেই অবস্থা বেগতিকসহ প্রাণভয়ে ঘাতক কবির হোসেন ঘরের বেতরে স্ত্রী-কন্যার মৃত দেহ রেখে অজ্ঞাত স্থানে পালিয়ে যায়। এদিকে দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হলেও ঘাতক কবির হোসেনের বাড়ীতে কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে প্রতিবেশিরা তাদের বাড়ীতে যেয়ে ঘটনা প্রত্যক্ষ করে। এসময় অন্যান্য প্রতিবেশিরাও জানতে পেরে ঘটনাস্থলে পৌছে ঘাতক কবিরের স্ত্রী রাজিয়া বেগমও কন্যা সাদিয়া আক্তারকে মৃতঅবস্থায় দেখতে পায়। প্রকাশ্যে দিবালোকে চাঞ্চল্যকর দুই দুটি খুনের মৃতদেহ দেখে এলাকাবাসি বিশ্মিত হয়ে পরে। এলাকাবাসি সংগটিত ঘটনাটি তাতক্ষনিক নরসিংদী সদর মডেল থানা পুলিশকে অবহিত করে।১৪ নভেম্বর মঙ্গলবার সকাল ১১টায় শহরের ঘোড়াদিয়া বনিক পাড়ায় সংগটিত ২টি খুনের সংবাদ পেয়ে সদর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে তাদের মৃত দেহ উদ্ধার করে। সদর মডেল থানা পুলিশের হেফাজতে নিহত মা- মেয়ের লাশ ময়না তদেন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে। ঘটনার পর থেকে ঘাতক স্বামী কবির হোসেন পলাতক রয়েছেন। তার স্থায়ী বাড়ি জেলার রায়পুরা উপজেলার চরমধুয়া ইউনিয়নের গাজীপুরা গ্রামে বলে জানা গেছে।পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রাজিয়া বেগম অন্ধ অবস্থা ভিক্ষাবৃত্তির মাধ্যমে পারিবারিক ভাবে জীবন- জীবিকা নির্বাহ করে আছছিল। তার ঘাতক স্বামী কবির হোসেন মাজে মধ্যে রিকশা চালাতেন।রিকশা চালক ঘাতক কবির হোসেনের উপাজিত অর্থ পুরোটাই মাদক সেবনে ব্যায় করতো।উপরন্ত স্ত্রী – কন্যার ভিক্ষাবৃত্তির আয়- রোজগারের টাকা পয়সা ও জোরপূর্বক হাতিয়ে নিত। মাদকাসক্ত কবির প্রায় সময়ই টাকার জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন করতেন। এরিপোট লেখা পযন্ত নরসিংদী সদর মডেল থানা পুলিশ ঘাতক কবির হোসেনকে গ্রেফতার করতে পারেনি বলে জানা জায়। নরসিংদী সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক তাপস চন্দ্র বলেন, নিহতদের গলায় হাতের ছাপ রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জের ধরে কবির তার স্ত্রী রাজিয়া ও শিশু কন্যা সাদিয়াকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।, পুলিশ ঘাতক স্বামী কবির হোসেনকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যহত রেখেছে বলে জানায়। নরসিংদীর ঘোড়াদিয়ায় পষন্ড স্বামী কর্তৃক পারিবারির সহিংসতায় মা-মেয়ের হত্যাকান্ডসহ জেলায় একের পর এক নারী নির্যাতন, ধর্ষন,খুন, জখম, অপহরন,সহ ব্যাপক হারে অপরাধ প্রবনতা বৃদ্ধিতে তৃব্র নিন্দা- ক্ষোভপ্রকাশ করে অভিলম্বে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহনে স্থানীয় প্রশাসন ও আনশৃংক্ষলা বাহিনিকে এগিয়ে আসার জন্য স্থানীয় মানবাধীকার সংস্থা নারী নির্যাতন প্রতিরোধ নেটওর্য়াক (এন এন পি এন) ও এমডিএস।