আমার ছেলে যেন আদর্শ মানুষ হয় : অপু বিশ্বাস

আপডেটঃ ২:১৭ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ১১, ২০১৭

বিনোদন প্রতিবেদক :‘ঢালিউড কুইন’ চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের জন্মদিন আজ (১১ অক্টোবর)। গেল বছরের জন্মদিনে অপু ছিলেন আড়ালে। সেজন্য তার জন্মদিনে কোনো আয়োজন তো ছিলই না, বরং ছিল ভক্তদের সংশয়! কবে ফিরবেন অপু? অথচ এবারের জন্মদিনে অপু রয়েছেন প্রকাশ্যে।

বছরের অন্যান্য দিনগুলোর চেয়ে আজকের এই দিনটি তার কাছে স্পেশাল হলেও কাটাচ্ছেন সাদামাটাভাবেই। জন্মদিনের দুপুরে অপু কথা বললেন সি এন এ নিউজকে বিনোদন বিভাগে… 

সি এন এ নিউজ : জন্মদিনে শুভেচ্ছা…
অপু : অনেক ধন্যবাদ আপনাকে ও সি এন এ নিউজকে…..

সি এন এ নিউজ : এখন কোথায় আছেন?
অপু : আমি বাসায় আছি। সারাদিন বাসাতেই থাকবো। হয়তো ছেলেকে (আব্রাম খান জয়) নিয়ে একটু ঘরতে বের হবো বিকেল অথবা সন্ধ্যায়। নির্দিষ্ট কোনো স্থান নেই, ঢাকার মধ্যে যেখানে মন চায় সেখানে বেড়াতে যাবো।

সি এন এ নিউজ : এবার আপনার জন্মদিনে কোনো আনুষ্ঠানিকতা থাকছে কি?
অপু : না, একেবারে সাদামাটাভাবে দিনটি কাটাচ্ছি। তবে গেল রাত ১২ টার পর জয়কে নিয়ে ছোট্ট একটা কেক কেটেছি। এই ছাড়া কোনো বিশেষ আনুষ্ঠানিকতা নেই। এইতো ক’দিন আগে বাবুর (আব্রাম খান জয়) জন্মদিনে সবাইকে আমন্ত্রণ জানালাম। সেখানে সবাই এসেছিলেন। তাই আমি নিজ থেকে আমার জন্মদিনে আনুষ্ঠানিকতা রাখিনি।

সি এন এ নিউজ : আপনার স্বামী (শাকিব খান), কিংবা শ্বশুরবাড়ি থেকে আপনাকে কেউ জন্মদিনে উইশ করেছেন?
অপু : কি উত্তর দেব বুঝতে পারছিনা। বন্ধু, সহকর্মী, আত্মীয়স্বজন অনেকেই উইশ করছেন। ফেসবুকে আমাকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। তবে শাকিব এখনও আমাকে উইশ করেনি, এমনকি তার পরিবাবেরও কেউ না। হয়তো তারা ব্যস্ত আছেন। হয়তো মন থেকে আমার স্বামী কিংবা শ্বশুরবাড়ির মানুষরা হয়তো আমার জন্য দোয়া করছেন। আর আজ শ্বশুরবাড়ি যাবো কিনা এখনও শিওর নই, যদি যাই; সবাই জানতে পারবেন।

সি এন এ নিউজ : আপনার কাছে স্মরণীয় জন্মদিন…
অপু : সে তো অনেকদিনই আছে। তবে তখন আমার বয়স ১০ কিংবা ১১ বছর। বগুড়া নিউ মার্কেটে আমাদের একটা দোকান ছিল। আমার কাকা বিশ্বনাথ বিশ্বাস দেখাশুনা করতেন। আমার সেবারের জন্মদিনের তিন-চারদিন আগে মার্কেটে আগুন লেগে সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। দোকানের পণ্য তো যায়ই, এমনকি দোকানের ক্যাশবাক্সে অনেক টাকা ছিল তাও পুড়ে যায়।

পোড়া টাকা ব্যাংকে নিয়ে গিয়েছিল কাকা। সেবার আমরা খুব আর্থিক সংকটে পড়েছিলাম। এই ঘটনার কদিন পরেই আমার জন্মদিনে কাকা আমার জন্য বিরিয়ানি, চকলেট, নতুন জামা কিনে দিয়েছিলেন। আমি তখন কি যে খুশি হয়েছিলাম ওই সংকটের মধ্যেও। সেবারের জন্যদিনটা আমি কোনোদিনই ভুলবো না। প্রতিবার জন্মদিন আসলে ওই ঘটনা মনে পড়ে। কাকাকেও মিস করি। কাকা আজ বেঁচে নেই।

সি এন এ, নিউজ : জন্মদিনে আপনার চাওয়া……
অপু : আমি চাই, আমার পরিবার যেন ভালো থাকে, সুখে-শান্তিতে থাকে। স্বামী-সন্তান-সংসার নিয়ে আমি জীবনটা আনন্দে কাটাতে চাই। আমার বাবুটার জন্য দোয়া করবেন। ও যেন মানুষের মতো মানুষ হতে পারে।

সি এন এ,  নিউজ : অনেকদিন পর আবার সিনেমার শুটিংয়ে ফিরেছেন……
অপু : তা প্রায় বছর দেড়েক তো হবেই! অলরেডি শুটিং শেষ হয়েছে। ‘পাঙ্কু জামাই’ ছবিতে আমার কিছু দৃশ্যের কাজ বাকি ছিল। ওটা শেষ করেছি। নতুন করে যা শুটিং হলো সামান্য কিছু ডাবিং বাকি, ওটাও দু-একের মধ্যে শেষ করবো। এছাড়া ‘মাই ডার্লিং’, ‘লাভ ২০১৬’, ‘মা’ ছবিগুলো আমার জন্য আটকে ছিল। নিজেকে গুছিয়ে আমি এখন প্রস্তুত আছি শুটিংয়ের জন্য। পরিচালক-প্রযোজক যখন শিডিউল চাইবেন আমি দিতে রাজি।

সি এন এ,  নিউজ : নতুন করে কোনো চলচ্চিত্রে কাজের পরিকল্পনা আছে……?
অপু : আমি অভিনেত্রী। সবসময়ই অভিনয়ের সঙ্গে থাকতে চাই। নিজেকে প্রস্তুত করছি সেজন্য। বাবু আরেকটু বড় হলে আবারও নিয়মিত কাজের ইচ্ছে আছে। তবে বর্তমানে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির যা অবস্থা তাতে ভরসা পাই না। ছবি বানানো বাদ দিয়ে সবাই রাজনীতি আর ব্যক্তিগত উত্থান-মর্যাদা নিয়ে বেশি ব্যস্ত। এইসব থেকে ইন্ডাস্ট্রিটাকে আগে বাঁচাতে হবে।