শৈলকুপায় পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের উপর হামলা,আহত ১০ বাড়ি ভাংচুর লুটপাট আটক ৩ !

আপডেটঃ ৮:৫৫ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ১৩, ২০১৬

 জাহিদুর রহমান তারিক,সি এন এ  নিউজ,ঝিনাইদহ :
ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার শেখড়া গ্রামে বুধবার রাতে আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ সময় ১৬টি বাড়ি ভাংটুর ও লুটপাট চালানো হয়। পুলিশ এ ঘটনায় তিন জনকে গ্রেফতার করেছে।

আহতদের শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে শৈলকুপার নিত্যানন্দনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা ফারুক বিশ্বাসের সাথে একই দলের সাবেক চেয়ারম্যান প্রার্থী মফিজ উদ্দিনের কর্মী-সমর্থকদের বিরোধ চলে আসছিলো।

এ ঘটনার জের ধরে বুধবার রাতে শেখড়া গ্রামে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষে আনারুল, শামীম, আলাম, জিন্না, শাহাদত ও বাবুসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়। এছাড়াও হামলাকারীরা শেখড়া গ্রামের ইনজার মোল্লা, ইউসুফ মোল্লা, রোজদার, বাশার, হাফিজ, শফিকুল, বাহাদুর, নুর মোহাম্মদ, আয়ুব মোল¬া, শফি, শাহিন শিকদার, ফজলু মন্ডল, নজরুল মন্ডল, হানিফ, লুৎফর, ফরিদুল ও পিকুলের বসতবাড়ীতে ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটায়।

আওয়ামীলীগ নেতা মফিজ জানিয়েছেন, ফারুকের সমর্থকরা বিনা উস্কানীতে তার সমর্থকদের উপর হামলা চালিয়ে বাড়িঘর লুটপাট করেছে।
এদিকে অপর গ্রুপের নেতা চেয়ারম্যান ফারুক বিশ্বাস জানান, তার সমর্থকরা কারো উপর হামলা চালায়নি।

মফিজের লোকজন নিজেরা নিজেরা মারামারী করেছে বলে তিনি দাবী করেন। শৈলকুপা থানার ওসি তরিকুল ইসলাম মোবাইল ফোনে জানান, শেখড়া গ্রামে সংঘর্ষে কয়েকটি বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও তিনজন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে। পরিস্তিতি এখন নিয়ন্ত্রনে বলেও তিনি দাবী করেন।