আর্থিক প্রতিবেদন আন্তর্জাতিক মানে করার পরামর্শ বিশ্বব্যাংকের

আপডেটঃ ২:৩৯ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ২৮, ২০১৫

নিজস্ব প্রতিবেদক:
দেশের সরকারি এবং বেসরকারি সব পর্যায়ের আর্থিক প্রতিবেদন আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন করার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্বব্যাংক। সোমবার বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয়ের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সরকারি আর্থিক ব্যবস্থাপনার জন্য অত্যন্ত জরুরি একটি বিষয় আর্থিক প্রতিবেদন। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং সেবার মান বাড়াতে বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ও অন্যান্য সেক্টরে কাঠামোগত আর্থিক প্রতিবেদন অত্যন্ত প্রয়োজন।

বিশ্বব্যাংকের সদর দফতর প্রতিবেদনটি রোববার প্রকাশ করে। এতে বেশ কিছু চ্যালেঞ্জও চিহ্নিত করা হয়েছে।

সংস্থাটি বলছে, প্রয়োজনীয় লোকবলের অভাবে এবং আইনি জটিলতার কারণে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) সঠিক সেবা দিতে পারছে না।এ ছাড়া পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলো যে আর্থিক প্রতিবেদন দিচ্ছে, সেগুলো মানসম্মত এবং আইনানুযায়ী প্রণীত হয়েছে কি না, সেটা সঠিকভাবে তদারকি করতে পারছে না বিএসইসি।

এদিকে রোববার ‘রিপোর্ট অন বাংলাদেশ অবজারভেশনস অব স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড কোডস : অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড অডিটিং’শীর্ষক এক কর্মশালায় বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদনেও এ ধরনের তথ্য তুলে ধরা হয়। বিশ্বব্যাংক ও ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউন্টস অব বাংলাদেশের (আইসিএবি) যৌথ উদ্যোগে এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধে বলা হয়, বাংলাদেশের রাষ্ট্রায়ত্ত আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং বেসরকারি আর্থিক, নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর আর্থিক বিবরণ ও নিরীক্ষা প্রতিবেদন ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্সিয়াল স্ট্যান্ডার্ডস (আইএফআরএস) ও ইন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ডস অন অডিটিং অনুযায়ী হচ্ছে না। বেসরকারি বিনিয়োগের প্রধান উৎস হচ্ছে ব্যাংকিং খাত। কিন্তু ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর আর্থিক বিবরণ ও নিরীক্ষণ প্রতিবেদন সঠিক হচ্ছে কি না, তা বাংলাদেশ ব্যাংক ও ব্যাংকিং বিভাগ তদারকি করছে না। বেসরকারি ব্যাংকগুলো আর্থিক বিবরণ ও নিরীক্ষণ প্রতিবেদন প্রকাশ করলেও তা আন্তর্জাতিক মানের নয়। অন্যদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর অবস্থা আরো খারাপ।